নিজস্ব জমি ক্রয় ও স্থায়ী ভবন নির্মানে আপনিও অংশ নিন

দেশের ভবিষ্যৎ নির্মাণে প্রয়োজন শিশুর সামগ্রিক বিকাশ। সেই লক্ষ্যে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। আমাদের এই কার্যক্রমের অংশীদার হতে আপনাকে সাদর আমন্ত্রণ জানাই। 

আমাদের কর্মসূচির উদ্দেশ্য এবং লক্ষ্য আপনার অবগতির জন্য নিচে উল্লেখ করা হলো।

শিশুর সামগ্রিক বিকাশের সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য

প্রতিটি শিশুর ব্যাক্তিজীবন এবং তাকে ঘিরে থাকা সামগ্রিক পরিবেশ সম্পর্কে জানার ক্ষেত্র তৈরি করা। এই লক্ষ্য বাস্তবায়নের উদ্যোগ হিসেবে প্রাথমিকভাবে যা করা হয়েছে 

২০১৭ সালে শিশু শিক্ষার প্রতিষ্ঠানসহজপাঠ উচ্চ বিদ্যালয়প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। এখানেপড়ার চেয়ে করা বেশিপদ্ধতির শিক্ষার কর্মকাণ্ডে যুক্ত শিশুরা যতটা না শেখে, তার চেয়ে অনেক বেশি শিখতে শেখে। আনন্দময় পরিবেশে শিশুকিশোররা পড়াশুনা এবং জীবন বিকাশের নানা কার্যক্রমে অংশ নেয়। দেশের শিক্ষার সংকট শিশুকিশোরদের সুষ্ঠুভাবে বেড়ে ওঠার চলমান সমস্যা বিবেচনায় রেখেই সাজানো হয়েছে আমাদের কার্যক্রম। 

সহজপাঠ শুরু থেকেই শিক্ষার্থী, অভিভাবক সমাজের অনুকূল সাড়া পেয়ে আসছে। কারণ, এই বিদ্যালয়ের শিশুরা শেখার বিষয়গুলোকে তাদের জীবনভাবনার সঙ্গে মেলাতে পারেশিশুর নির্ভয়ে প্রশ্ন করার প্রবণতার মধ্যেই তা দৃশ্যমান। বলা যায়, এই শিশুদের বিশ্বমানব হয়ে ওঠার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে ইতোমধ্যে।

২০১৯ সাল থেকে সহজপাঠ বাংলাদেশের জাতীয় শিক্ষাক্রম পাঠ্যপুস্তক বোর্ডেরশিক্ষাক্রম ২০২২নামের নতুন শিক্ষাপদ্ধতি প্রণয়ন দলের সঙ্গে কাজ করছে। ২০২৩ সাল থেকে সারা দেশে চালু করার লক্ষ্যে সরকার পরিচালিত নতুন এই শিক্ষাপদ্ধতির পাইলটিংয়েও সহজপাঠ যুক্ত হয়েছে।  

পরবর্তী উদ্যোগ 

সহজপাঠকে পূর্ণাঙ্গ এবং স্থায়ী প্রতিষ্ঠানিক রূপ দেওয়ার জন্যে উপযুক্ত মানের অবকাঠামো সম্বলিত নিজস্ব ক্যাম্পাস গড়ে তোলাএই লক্ষ্যে জমি নির্বাচন করা হয়েছে। তহবিল সংগ্রহের কাজও এগিয়ে যাচ্ছে দ্রুত গতিতে। 

নিয়মিত পঠনপাঠন এবং অনুশীলনের সুযোগ সৃষ্টি করে শিক্ষকদের নিত্য বিকাশমান শিক্ষাধারার সঙ্গে সমান্তরালভাবে বেড়ে উঠতে এবং তা রূপায়নের যোগ্যতা বজায় রাখতে সহায়তা প্রদান করাশিক্ষক যেন সচেতন, সংবেদনশীল ইতিবাচক মানুষ হয়ে উঠতে পারেন। 

শিক্ষা শিশু সম্পর্কে অভিভাবকসহ সমাজের সর্বস্তরে সচেতনতা সৃষ্টির কার্যক্রম পরিচালনার মাধ্যমে সামাজিক আন্দোলনের উদ্যোগ গ্রহণ করা।

গবেষণা প্রকাশনার মতো কাজের মাধ্যমে সহজপাঠকে প্রতিষ্ঠানিকভাবে দেশের শিক্ষাব্যবস্থার গুণগত মৌলিক পরিবর্তনে ভূমিকা রাখতে সক্ষম করে তোলা।

আমাদের সাংগঠনিক কাঠামো

সহজপাঠ পরিচালিত হয় প্রচলিত রাষ্ট্রীয় আইনে নিবন্ধিত একটি ট্রাস্টি বোর্ডের তত্ত্বাবধানে। পরিচালনার নানা ধাপে উপদেশপরামর্শ প্রদানের জন্যে আরো আছে একটি উপদেষ্টা পরিষদ। সহজপাঠ উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনার সার্বিক দায়িত্ব পালন করছে সরকারের বিধি অনুযায়ী গঠিত বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটি। 

ছাড়াও সচেতনতামূলক আন্দোলনমুখী সামাজিক কাজের ভিত্তি তৈরি করার লক্ষ্যে এবং সহজপাঠের উন্নয়নে নিরন্তর সহযোগিতা প্রদানে সক্ষমসহজপাঠ সুহৃদ সংসদগঠন করা হয়েছে। 

আমাদের আবেদন

একজন বিদ্যোৎসাহী সমাজমনস্ক ব্যক্তি হিসেবে কাজে অংশগ্রহণ করতে আপনাকে বা আপনার প্রতিষ্ঠানকে উদাত্ত আহ্বান জানাই। এই অংশগ্রহণের মাধ্যমে সহজপাঠের শিক্ষাযাত্রায় অংশীদার হওয়ার সন্তুষ্টি ছাড়াও এর ইতিহাসের সঙ্গে আপনি চিরকালের জন্য যুক্ত থাকবেন। আপনিসহজপাঠ উন্নয়ন তহবিল’- যে কোনো পরিমাণ অর্থ প্রদান করতে পারেন। অর্থ প্রদানে আগ্রহীজন নিচের ব্যাংক হিসাবে নগদ জমা দিতে পারবেন অথবা অনলাইনেও স্থানান্তর করতে পারবেন।  

হিসাবের নাম:
সহজপাঠ উন্নয়ন তহবিল
Shahajpath Unnayan Tahbil

ব্যাংকের নাম:
বেসিক ব্যাংক লিমিটেড
Basic Bank Ltd

হিসাব নম্বর:
২৮১০ ০১ ০০০৪৫৯৩
A/C 2810 01 0004593

রাউটিং নম্বর: ০৫৫২৬১১৮৬
Routing number: 055261186

সহজপাঠ উন্নয়ন তহবিলে দাতা প্রতিষ্ঠানের নাম সহজপাঠ স্থায়ীভাবে সংরক্ষণের ব্যবস্থা করবে, নির্মিতব্য ভবনের দেওয়ালে স্থায়ীভাবে লিখে রাখা হবে। এক লক্ষ বা তদূর্ধ্ব পরিমাণ অর্থ অনুদানকারী সহজপাঠ সুহৃদ সংসদের আজীবন সদস্য হিসেবে গণ্য হবেন। অধিক পরিমাণ অনুদানে আগ্রহীজন আলোচনার মাধ্যমে ভবনের কোনো অংশ বা কক্ষ তাদের প্রস্তাবিত নামে নামকরণ করতে পারবেন। 

আমরা আশা করি দেশের ভবিষ্যৎ নির্মাণে শিশুর সামগ্রিক সুষ্ঠু বিকাশের এই অভিযাত্রায় আপনিও আমাদের সাথী হবেন। 

সহজপাঠের কথা

বিশ্বব্যাপী প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার গুরুত্ব বৃদ্ধি পেয়েছে। বাংলাদেশেও আজ ধনী-দরিদ্র, শিক্ষিত-শিক্ষাবঞ্চিত সকলের মধ্যে শিক্ষা সম্পর্কে আগ্রহ ও এর গুরুত্ব সম্পর্কে সচেতনতা সৃষ্টি হয়েছে। সরকারও শিক্ষার বিস্তার ও গুণগত মান উন্নয়নে কার্যকর অনেক পদক্ষেপ নিচ্ছে। তবে দেশে বর্তমান বহুধারায় বিভক্ত শিক্ষাব্যবস্থায় স্কুল পর্যায়ের প্রায় পাঁচ কোটি ছাত্রের জন্য সমমানের মানসম্পন্ন শিক্ষা নিশ্চিত করা কঠিন কাজ। তাছাড়া এতে ছাত্রদের মধ্যে শিক্ষার হেরফের ঘটার পাশাপাশি ব্যক্তিগত ও জাতীয় জীবন নিয়ে দৃষ্টিভঙ্গির ব্যাপক পার্থক্য তো ঘটছেই, এমনকি তা অনেক সময় পরস্পরবিরোধী ও সাংঘর্ষিকও হয়ে পড়ছে। এভাবে মতাদর্শ, জীবনবোধ এবং দক্ষতার বিচারে বহুধা বিভক্ত এক জাতিতে পরিণত হচ্ছে বাংলাদেশের মানুষ। এছাড়া বহুকালে গড়ে ওঠা সম্পূর্ণ মুখস্থবিদ্যা নির্ভর নিতান্ত পরীক্ষামুখী এই শিক্ষা ছাত্রের নিহিত সম্ভাবনার সর্বোচ্চ বিকাশ যেমন ঘটাতে পারছে না তেমনি মানবিক গুণসম্পন্ন প্রকৃত মানুষ তৈরিতেও সফল হচ্ছে না।
শিশুর সুষ্ঠু বিকাশের পথের অন্তরায় বিবেচনায় রেখে শিশুর সামূহিক (holistic) বিকাশ নিশ্চিত করার উপযোগী কার্যক্রম গ্রহণ আমাদের মূল লক্ষ্য। বাস্তব অভিজ্ঞতা এবং পঠনপাঠনের ভিত্তিতে আমরা জানি শিক্ষার মূল কাজ হলো শিশুর সকল সম্ভাবনার বিকাশের সহায়ক ভূমিকা পালন যাতে উচ্চতর পর্যায় শেষে প্রজ্ঞাবান, পরিণত প্রকৃত মানুষ রূপে তাদের আত্মপ্রকাশ সম্ভব হয়। ফলে এ পর্যায়ে শিক্ষা সংকীর্ণভাবে পাঠ্যবই, মুখস্থবিদ্যা, পরীক্ষা, সনদপত্রের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকতে পারে না। শিক্ষা যথাযথভাবে লালিত ও বিকশিত হয় যথার্থ মানবিক সাংস্কৃতিক বাতাবরণে। এভাবেই স্কুল শিক্ষাকে আনন্দময়, সৃজনশীল ও ফলপ্রসূ করে তোলা যায়।
শিক্ষা একটি মানবিক কাজ, স্কুল একটি সামাজিক প্রতিষ্ঠান। আমাদের ধারণা শিশুর শিক্ষা ও বিকাশ নিয়ে প্রতিষ্ঠানের উদ্যোক্তাদের পাশাপাশি শিক্ষানুরাগী ব্যক্তি, স্কুলের অভিভাবকদের মধ্যে সচেতন ও আগ্রহী ব্যক্তিবর্গ ও সামাজিক প্রতিষ্ঠানের সমন্বয়ে একটি সামাজিক উদ্যোগও অপরিহার্য। এ বিশাল কর্মযজ্ঞে আগ্রহী উৎসাহী সকল মানুষের অংশগ্রহণ যেমন প্রয়োজন তেমনি তাঁদের সবার অংশগ্রহণের সুযোগ সৃষ্টি হওয়াও দরকার। এটাই হলো সহজপাঠ প্রতিষ্ঠানের মূল প্রেরণা।
শিক্ষার মূল কাজ জ্ঞানচর্চা, আর তা যেহেতু নিত্য বিকাশমান, তাই শিক্ষকদের চাই নিয়মিত পঠন-পাঠন এবং অনুশীলনের সুযোগ। তাঁদের হতে হবে সচেতন, সংবেদনশীল ও ইতিবাচক মানুষ। আর শিক্ষা ও শিশু সম্পর্কে অভিভাবকসহ সমাজের সচেতনতা ও সহযোগিতা ছাড়া স্কুলের পক্ষে ভালো ফলাফল উপহার দেওয়া সম্ভব নয়। ফলে প্রকৃত শিক্ষা সম্পর্কে অভিভাবক সমাজে সচেতনতা সৃষ্টির পাশাপাশি শিক্ষকদের এটি রূপায়নের যোগ্য হয়ে ওঠার জন্য সহযোগিতা দেওয়া অত্যন্ত প্রয়োজন।
উপর্যুক্ত ভাবনা থেকে কিছু সমাজ সচেতন মানুষ শিশুশিক্ষা, শিশুর বিকাশ, শিক্ষাবিষয়ক গবেষণা ও প্রকাশনা, শিক্ষা উপকরণ তৈরি ও বিতরণ, সুষ্ঠু ও মানসম্পন্ন শিক্ষার অনুকূলে সচেতনতা ও জনমত সৃষ্টি এবং শিশু ও শিক্ষা সংক্রান্ত সম্ভাব্য বিভিন্ন ইতিবাচক উদ্যোগ গ্রহণ করার লক্ষ্যে দলবদ্ধ হন। এই লক্ষ্য বাস্তবায়নের পরিকল্পনার প্রাথমিক পর্যায়ে তারা ২০১৮ সালে ঢাকার লালমাটিয়ার একটি ফ্ল্যাট বাড়ি থেকে ‘সহজপাঠ উচ্চ বিদ্যালয়’ চালু করেন। প্রাকপ্রাথমিক থেকে দশম শ্রেণির এই বিদ্যালয় সমাজে ব্যাপক আগ্রহ সৃষ্টি করেছে। ২০১৯ সাল থেকে সহজপাঠের পরিচালকমণ্ডলী ও শিক্ষকদের কয়েকজন জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের ‘শিক্ষাক্রম ২০২১’ নামের নতুন শিক্ষাক্রম প্রণয়ন দলের সঙ্গে কাজ করছে। নতুন এই শিক্ষাক্রম ২০২৩ সাল থেকে সারা দেশে চালু হতে যাচ্ছে। বিগত ২৩ জুলাই ২০২২ গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় শিক্ষমন্ত্রী ড. দীপু মনি সহজপাঠ পরিদর্শনে আমন্ত্রিত হয়ে এসে মন্তব্য করেছেন, “আনন্দময় শিক্ষার যে আয়োজন আমরা করতে চেষ্টা করছি তা’র একটা সুন্দর চেহারা এখানে দেখে গেলাম” । উপযুক্ত সহযোগিতা পেলে সহজপাঠ নতুন যুগোপযোগী শিক্ষার প্রসারে সামাজিক আন্দোলনের কাজে হাত দিতে পারবে বলে আশা করা যায়। এমন সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে যে, কেবল স্কুল পরিচালনায় সীমাবদ্ধ না থেকে সব স্তরের স্কুল-শিক্ষা নিয়ে কিছু মৌলিক কাজে হাত দিলে সহজপাঠ দেশের শিক্ষাব্যবস্থায় গুণগত পরিবর্তন আনার কাজে ভূমিকা রাখতে সক্ষম হতে পারবে।

সংগঠন

সহজপাঠ পরিচালিত হয় একটি ট্রাস্টি বোর্ডের মাধ্যমে, সঙ্গে আছে উপদেষ্টা পরিষদ। সহজপাঠ উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনায় সরকারের বিধি অনুযায়ী স্কুল ব্যবস্থাপনা কমিটি রয়েছে। একটি সামাজিক সচেতনতামূলক আন্দোলনমুখী কাজের ভিত্তি তৈরিতে সমচিন্তার মানুষের অংশগ্রহণের প্রয়োজনের কথা ভেবে সহজপাঠ সুহৃদ সংসদ গঠন করা হয়েছে। এই সংসদের প্রধান হিসেবে আছেন অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল।

ভবিষ্যৎ ভাবনা

নিজস্ব ক্যাম্পাসে ভবন নির্মাণ করে কার্যক্রমের পরিসর বৃদ্ধি করে নিম্নবর্ণিত লক্ষ্য অর্জন সম্ভব হবে –

  • উচ্চমূল্যের ভাড়া বাড়ির কারণে অভিভাবকদের ওপর যে অর্থনৈতিক চাপ তা কমানো
  • প্রশস্ত পরিসরে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করলে শিক্ষার মানোন্নয়ন ঘটবে
  • শিক্ষকদের গুণগত মানোন্নয়নে উচ্চতর হারে সম্মানী প্রদান
  • শিক্ষা ও শিশুর বিকাশ নিয়ে বহুমুখী কাজের উদ্যোগ গ্রহণ
  • যুগোপযোগী শিক্ষার প্রসারে সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধির কাজ করা

সমাজের সর্বস্তরের সমাজ সচেতন শিশুবান্ধব মানুষ ও প্রতিষ্ঠান থেকে অর্থ সংগ্রহের মাধ্যমে সহজপাঠ উন্নয়ন তহবিল গড়ে তোলা। এই তহবিলে দাতাদের নাম স্থায়ীভাবে সংরক্ষণের ব্যবস্থা থাকবে, নির্মিতব্য ভবনের দেওয়ালে লিখে রাখা হবে। এক লক্ষ বা তদূর্ধ্ব পরিমাণ অর্থ অনুদানকারীদের সহজপাঠ সুহৃদ সংসদের আজীবন সদস্য হিসেবে ধরা হবে। যারা অধিক পরিমানে অর্থ দিতে পারবেন, আলোচনার মাধ্যমে ভবনের কোনো অংশ বা কক্ষ তাদের প্রস্তাবিত নামে নামকরণের ব্যবস্থা করা হবে।

অনুদানের জন্য ব্যাংকের তথ্য

হিসাবের নাম:
সহজপাঠ উন্নয়ন তহবিল
Account Name:
Shahajpath Unnayan Tahbil

ব্যাংক:
বেসিক ব্যাংক লিমিটেড
Bank:
Basic Bank Ltd

হিসাব নম্বর:
২৮১০ ০১ ০০০৪৫৯৩
Account Nmber:
2810 01 0004593

রাউটিং নম্বর:
০৫৫২৬১১৮৬
Routing number:
055261186